মমতা সোনিয়ার সম্পর্ক তলানিতে, তৃণমূল সুপ্রিমোর দিল্লি সফরে স্পষ্ট - BBP NEWS

Breaking

বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২১

মমতা সোনিয়ার সম্পর্ক তলানিতে, তৃণমূল সুপ্রিমোর দিল্লি সফরে স্পষ্ট



বিবিপি নিউজ: গতবার দিল্লি সফরে গিয়ে কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি দিল্লি গেলেই সোনিয়ার সঙ্গে দেখা করেন। কিন্তু এবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত্‍ করলেন গেলেন কংগ্রেস নেত্রীর সোনিয়ার কাছে‌। যার জেরে জোর চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। যদিও অন্য আরেক মহলের মত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও সোনিয়া গান্ধীর সম্পর্ক তলানিতে ঠেকেছে।


প্রসঙ্গত, মমতার দিল্লিতে সফরে কংগ্রেসের ঘর ভেঙে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা কীর্তি আজাদ। পাশাপাশি মেঘালয়েও তাসের ঘরের মত গুড়িয়ে গিয়েছে কংগ্রেস। কংগ্রেসের এক ডজন বিধায়ক নাম লিখিয়েছেন তৃণমূলে। ফলে দেশের কোনো রাজ্যে প্রথম বিরোধী দলের তকমা পেছেয়ে তৃণমূল। কিছুদিন আগেই তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লুইজিনহো ফালেইরিও। তালিকায় রয়েছেন অভিজিত্‍ মুখোপাধ্যায়, সুস্মিতা দেবের মতো নেতৃত্বরাও। এই পরিস্থিতিতে দিল্লিতে সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে মমতা দেখা না করা নিয়ে তৈরি হয়েছে জল্পনা। পাশাপাশি প্রশ্ন উঠেছে বিরোধী ঐক্য নিয়েই। তবে এ বিষয়ে মমতার সাফ জবাব, ''ওঁর সঙ্গে প্রতিবারই দেখা করব কেন? এটা সাংবিধানিকভাবে বাধ্যতামূলক নয়।''এদিকে মুখ্যমন্ত্রীর এহেন মন্তব্যে শেরগোল পড়েছে জাতীয় রাজনীতিতে। শুরু হয়েছে জল্পনা। ঠিক কী বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী? এদিন সোনিয়া প্রসঙ্গে তিনি স্পষ্ট বলেন, ''আমি সময় নিয়ে শুধুমাত্র এবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে এসেছি। 


ভারত সরকার স্বীকৃত রঙিন মাসিক 'দেশেরভূমি পত্রিকা' বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন: 7003345558



পঞ্জাব নির্বাচনের জন্য সকল নেতারাই ব্যস্ত রয়েছেন। কাজ আগে। কেন প্রত্যেকবার সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করতে হবে? এটা কখনই সাংবিধানিকভাবে বাধ্যতামূলক নয়।''কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সখ্য থাকলেও সম্প্রতি তাতে চিড় ধরেছে। পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোটের পর তৃণমূলের পাখির চোখ এখন দিল্লি। সেই লক্ষেই এগিয়ে চলেছে তৃণমূল। গতবার দিল্লি গিয়ে মমতা জোট বার্তা দিলেও, সেভাবে সাড়া দেয়নি কংগ্রেস। এতেই বেড়েছে দূরত্ব। তৃণমূলের উপর বেজায় চটেছে কংগ্রেসও। কারণ তৃণমূলে যোগ দেওয়া নেতাদের অধিকাংশই কংগ্রেসের। 

Pages