টেট কেলেঙ্কারি নিয়ে স্বীকারোক্তি কালনার বিধায়কের,স্ত্রী-বউদি সহ ৬৪ জন তৃণমূল কর্মীকে চাকরি - BBP NEWS

Breaking

শুক্রবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

টেট কেলেঙ্কারি নিয়ে স্বীকারোক্তি কালনার বিধায়কের,স্ত্রী-বউদি সহ ৬৪ জন তৃণমূল কর্মীকে চাকরি

 


বিবিপি নিউজ: রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে ততই বাড়ছে জল্পনা। ঘর ভাঙার খেলায় মেতেছে ঘাসফুল থেকে পদ্ম শিবির। তৃনমূলের একের পর এক হেভিওয়েট নেতা থেকে শুরু করে বিধায়কেরা গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছেন। এরপরে তৃনমূলের আক্রমন করতে গিয়ে কখনও বাম আবার কখনও তৃনমূলের দূর্নীতির কথা প্রকাশ্যে এনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলকে আক্রমন শানাচ্ছেন। এবার প্রকাশ্যে টেট দূর্নীতির কথা স্বীকার করলেন সদ্য তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া কালনার বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুন্ডু। 

ইটিভি ভারতের একটি সাক্ষাৎকারে বিশ্বজিৎ বাবু বলেনে, তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক থাকার সময় ২০১৪ সালে নিজের স্ত্রী-বউদি সহ ৬৪ জন তৃনমূলের কর্মীকে প্রাথমিকে চাকরি দিয়েছেন।এর আগে একাধিকবার টেট কেলেঙ্কারির সঙ্গে বিধায়কের যুক্ত থাকার অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল নেতৃত্ব । এবার সেইসব অভিযোগ স্বীকার করে নিলেন খোদ বিধায়ক। তিনি জানান, স্ত্রী ও বউদির পাশাপাশি আরও ৬২ জন তৃণমূলকর্মীকে চাকরি পাইয়ে দিয়েছেন। একই সঙ্গে তৃণমূলের একাধিক হেভিওয়েট নেতার নামও টেট কেলেঙ্কারিতে উল্লেখ করেন তিনি। তিনি বলেন"টেটে ২০১৪ সালে যে নিয়োগ হয়েছে, তাতে তৃণমূল কর্মীরা বা তৃণমূলের পছন্দের লোকেরা চাকরি পেয়েছেন। কোনও দুর্নীতি হয়ে থাকলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই করেছেন। এখানে স্বপন দেবনাথ থেকে শুরু করে তপন চট্টোপাধ্যায়, অনুব্রত মণ্ডল, বিশ্বজিৎ কুণ্ডু- অনেক নেতাই প্রাইমারি চাকরি দিয়েছেন। আমার বাড়ি থেকে স্ত্রী এবং বউদি চাকরি পেয়েছেন ঠিকই। এছাড়া ৬২ জনকে চাকরি দিয়েছি, তাঁরা দলের কর্মী।"

Pages